দিনাজপুর বার্তা ২৪ | Dinajpur Barta 24

ব্রেকিং নিউজ
নবীন শিক্ষার্থীরা আগামী দিনের কারিগর ও জাতির দিকনির্দেশক – হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি
মোফাচ্ছিলুল মাজেদ জুলাই ৮, ২০১৭, ৮:১৩ অপরাহ্ণ | পড়া হয়েছে ৬২৯ বার |

দিনাজপুর বার্তা ২৪.কম ॥ হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবসময় শিক্ষাকে গুরুত্ব দিয়েছেন। দেশের শিক্ষার্থীদের আধুনিক জ্ঞান-বিজ্ঞানে শিক্ষিত করে গড়ে তুলতে শিক্ষাখাতে সর্বোচ্চ বরাদ্দ দিয়েছেন। নতুন নতুন বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করেছেন এবং জাতীয় শিক্ষানীতি প্রনয়ন করেছেন। এখন স্কুল শিক্ষার্থীরা বছরের ১ম দিনেই নতুন বই হাতে পাচ্ছে।

নবীন শিক্ষার্থীদের অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়ে ইকবালুর রহিম বলেন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নির্ভর আধুনিক দেশ গড়ায় তোমরা নবীন শিক্ষার্থীরা আগামী দিনের কারিগর ও জাতির দিকনির্দেশক। সরকার ও জনগনের প্রতি তোমাদের অনেক দায়িত্ব রয়েছে। নিজে শুধু ভাল থাকলে চলবে না। সবার কথা ভাবতে হবে। ভূলে গেলে চলবেনা ৫ বছরে তোমাদের পিছনে জনগণের কষ্টার্জিত অনেক টাকা ব্যয় হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত ২০২১ সালে মধ্যম আয়ের এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত বাংলাদেশ গড়ে তোলার ক্ষেত্রে তোমরা অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে বলে আশা ব্যক্ত করছি।

৮ জুলাই শনিবার সকালে দিনাজপুর সরকারী কলেজের নবীন বরণ ও কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

দিনাজপুর সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর আবুবক্কর সিদ্দিক এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলম, পুলিশ সুপার মো. হামিদুল আলম, কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর সৈয়দ মোহাম্মদ হোসেন, শিক্ষক পরিষদ কলেজের সম্পাদক এ কে এম আল আব্দুল্লাহ, শহর আওয়ামীলীগের সভাপতি মো. আনোয়ারুল ইসলাম, নবীন বরণ ও কৃতী শিক্ষার্থী সংবর্ধনা কমিটির আহবায়ক প্রফেসর মো. ইছাহাক আলী।

বক্তব্যশেষে প্রধান অতিথি প্রতিষ্ঠানের ১২৬৮ জন কৃতি শিক্ষার্থীদের মাঝে সন্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করেন। এর আগে ৬০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে দিনাজপুর সরকারী কলেজের প্রধান ফটকের উদ্বোধন করেন হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি।

 

এই পাতার আরো খবর -
৪ঠা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
দিনাজপুর, বাংলাদেশ
ওয়াক্তসময়
সুবহে সাদিকভোর ৪:৪৩ পূর্বাহ্ণ
সূর্যোদয়ভোর ৫:৫৯ পূর্বাহ্ণ
যোহরদুপুর ১১:৫৪ পূর্বাহ্ণ
আছরবিকাল ৪:১০ অপরাহ্ণ
মাগরিবসন্ধ্যা ৫:৪৯ অপরাহ্ণ
এশা রাত ৭:০৬ অপরাহ্ণ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদকীয়