দিনাজপুর বার্তা ২৪ | Dinajpur Barta 24

ব্রেকিং নিউজ
কিশোরগঞ্জে হয় আমি, না হয় মাদক থাকবে
মোফাচ্ছিলুল মাজেদ মার্চ ২৫, ২০১৭, ১২:২৫ অপরাহ্ণ | পড়া হয়েছে ৫০১ বার |

দিনাজপুর বার্তা২৪ ডেক্স: নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলাকে মাদকমুক্ত ঘোষণা করার লক্ষে সর্বস্তরের জনগনের মধ্যে ব্যাপক সাড়া মিলছে। প্রকাশ্য মাদক ব্যবসায়ী ও সেবনকারীদের সংখ্যা শুন্যের কোটায় নেমে এসেছে। জন সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে “মাদককে না বলি, মাদকমুক্ত কিশোরগঞ্জ গড়ি” লেখা বিলবোর্ড, পোস্টার, লিপলেট বিতরণ ও ইউনিয়ন পর্যায়ে মাদক প্রতিরোধ সমাবেশ অব্যাহত রয়েছে। থানা পুলিশের উদ্যোগে বিভিন্ন ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন পর্যায়ে মাদক প্রতিরোধ সমাবেশে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের স্বত:স্ফুর্ত অংশগ্রহন ও মাদকের বিরুদ্ধে পুলিশ প্রশাসনকে সহায়তা করার সোচ্চার কন্ঠস্বর  কিশোরগঞ্জকে মাদকমুক্ত ঘোষণা করার দ্বার প্রান্তে পৌছে দিয়েছে। এদিকে মাদক প্রতিরোধে থানা পুলিশের শুদ্ধি অভিযানের ফলে মাদক সিন্ডিকেট ভেঙ্গে পড়েছে। ব্যবসায়ী ও সেবনকারীদের অপতৎপরতা থমকে দাড়িয়েছে। অনেকে অন্য উপজেলা গিয়ে অতি গোপনে মাদক নিচ্ছে। আগামী সপ্তাহ থেকে রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমে চিহ্নিত সেবনকারীদের আইনের আওতায় নেয়া হবে বলে জানা গেছে। এব্যাপারে কিশোরগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ বজলুর রশীদ মাদক প্রতিরোধে সকলের সহযোগিতা চেয়ে বলেন, কিশোরগঞ্জে হয় আমি থাকব, না হয় মাদক থাকবে। উল্লেখ্য যে, পাইলট প্রকল্প হিসেবে মদক মুক্ত ঘোষণা করার লক্ষে একমাত্র কিশোরগঞ্জ উপজেলাকে পুলিশের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ নির্বাচিত করেছেন। এ লক্ষে গত ৫মার্চ বিভিন্ন স্কুল কলেজের ছাত্র/ছাত্রী ও শিক্ষকসহ সর্বস্তরের জনগনের স্বতস্ফুর্ত অংশগ্রহনে জেলা পুলিশ সুপার জাকীর হোসেন খাঁনের নেতৃত্বে এক বিশাল র‌্যালি ও থানা চত্বরে মাদক প্রতিরোধ সমাবেশের মাধ্যমে মদক মুক্ত কিশোরগঞ্জ গড়ার ঘোষণা দেয়া হয়। সম্প্রতি থানা পুলিশ ১৫টি মাদক মামলায় ৩৫জন মাদক ব্যবসায়ীকে কারাগারে ও ৫জন সেবনকারীকে মাদক নিরাময়কেন্দ্রে প্রেরণ করেছে। এছাড়া মাদক সেবনকারীদের অনেকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার জন্য তাবলীগ জামায়াতে গেছে। এছাড়া ক’জন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ীকে ওসি পুনর্বাসনের উদ্যোগ গ্রহন করেছে। কিশোরগঞ্জকে মাদকমুক্ত ঘোষণা করার পর যারা জড়িত থাকবে তাদের ছবি সংবলিত নাম দিয়ে পেষ্টার বিতরণ করে হোটেল, রেস্তারা, যানবাহনসহ সমামাজের সর্বত্রই তাদেরকে না বলার জন্য থানা প্রশাসন নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অন্যথায় যারা আশ্রয়-প্রশ্রয় দিবে তাদেরকে মাদক সিন্ডিকেটের সহযোগী হিসেবে আইনের আওতায় আনা হবে। কিন্তু সচেতন মহলের আশংঙ্কা মাদক মুক্ত ষোষণা করার পর (এই ওসি চলে গেলে) থানা পুলিশের মাদক বিরোধী কার্যক্রমের স্থবিরতা নেমে আসলে আবারো কি পূর্বের ন্যায় প্রকাশ্যে মাদক সেবনকারীদের মাতলামি দেখতে হবে। এজন্য কিশোরগঞ্জের মাদক প্রতিরোধে স্থায়ী পরিকল্পনা বাস্তবায়নে পুলিশের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের নীতিগত সিদ্ধান্ত মাদকমুক্ত ঘোষণা সমাবেশে আসবে, এটাই সকলের প্রত্যাশা। এদিকে ২০১৪ সালের ৫জুলাই সাড়া দেশের মধ্যে ভিক্ষাবৃত্তির অভিশাপমুক্ত কিশোরগঞ্জ উপজেলা একটি রোল মডেল হিসেবে ঘোষণা দেয়া হয়। এবার অত্র উপজেলাকে মাদক মুক্ত ঘোষণা করার জন্য সর্বস্তরের জনগন থানা পুলিশ প্রশাসনকে সর্বাত্বক সহযোগিতার প্রেরণা যোগিয়ে যাচ্ছে।

এই পাতার আরো খবর -
৮ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
দিনাজপুর, বাংলাদেশ
ওয়াক্তসময়
সুবহে সাদিকভোর ৪:৪৪ পূর্বাহ্ণ
সূর্যোদয়ভোর ৬:০০ পূর্বাহ্ণ
যোহরদুপুর ১১:৫৩ পূর্বাহ্ণ
আছরবিকাল ৪:০৭ অপরাহ্ণ
মাগরিবসন্ধ্যা ৫:৪৬ অপরাহ্ণ
এশা রাত ৭:০২ অপরাহ্ণ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদকীয়